৪৬ পুলিশের বিরুদ্ধে ছাত্রদল নেতা নূরে আলমের স্ত্রীর হত্যা মামলা

0
21

ভোলা নিউজ২৪ডটকম।। গত ৩১ জুলাই ভোলায় বিক্ষোভ সমাবেশ করে জেলা বিএনপি। সমাবেশ চলাকালে পুলিশ ও বিএনপি নেতা-কর্মীদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এ সময় গুলিতে স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতা আব্দুর রহিম নিহত হন। আহত ছাত্রদলের সভাপতি নুরে আলম হাসপাতালে মারা যান গত ৩ আগস্ট।

ভোলা জেলা ছাত্রদলের সভাপতি নুরে আলমের মৃত্যুর ঘটনায় ৪৬ পুলিশের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা করা হয়েছে। নিহতের স্ত্রী ইফফাত জাহান বাদী হয়ে আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে ভোলার সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে এ মামলা করেন। মামলায় ভোলা মডেল থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো. আরমান হোসেনসহ ৪৬ পুলিশ সদস্যকে আসামি করা হয়েছে।

বাদী পক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট আমিরুল ইসলাম বাসেত ভোলা নিউজ২৪ডটকম কে এ তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ‘নিহত ভোলা জেলা ছাত্রদল সভাপতি নিহত নুরে আলমের স্ত্রী ইফফাত জাহান বাদী হয়ে দুপুরে ভোলার সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আলী হায়দার কামালের আদালতে ৪৬ জনের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা করেছেন। আদালত আগামী ৮ সেপ্টেম্বরের মধ্যে তথ্য প্রমাণ আদালতে জমা দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন।’

উল্লেখ্য, বিএনপির কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে লোডশেডিং ও জ্বালানি খাতে অব্যবস্থাপনার প্রতিবাদে গত ৩১ জুলাই বিক্ষোভ সমাবেশের আয়োজন করে ভোলা জেলা বিএনপি। প্রতিবাদ সমাবেশ শেষে একটি বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে সদর রোডে যাওয়ার সময় পুলিশ ও বিএনপির সংঘর্ষ বাঁধে। এতে বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের অর্ধ শতাধিক নেতাকর্মী এবং পুলিশ সদস্য আহত হন। পরে আব্দুর রহিম নামে স্বেচ্ছাসেবক দলের এক নেতা নিহত হন। একই দিন আহত জেলা ছাত্রদলের সভাপতি নূরে আলম গত ৩ আগস্ট ঢাকায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।

বিএনপির পক্ষ থেকে দাবি করা হচ্ছে, নূরে আলমসহ দুই নেতা পুলিশের গুলিতে নিহত হয়েছেন।

এর আগে স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতা আব্দুর রহিম নিহত হওয়ার ঘটনায় ভোলা মডেল থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো. আরমান হোসেনকে প্রধান আসামি করে ৩৬ পুলিশের বিরুদ্ধে ভোলার আদালতে হত্যা মামলা করা হয়।

LEAVE A REPLY