উপকুলিয় এলাকা রক্ষায় ৩২৮০ কোটি টাকার প্রকল্প…ভোলায় পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী

0
266

মো: আফজাল হোসেন।। ভোলার বন্যা নিয়ন্ত্রন বাঁধ ও নদী ভাঙ্গন কবলিত এলাকা পরিদর্শন করতে এসে পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক এমপি বলেন,আবহাওয়া পরিবর্তনের ফলে প্রতিনিয়ত পানির উচ্চতা বৃদ্ধি পাচ্ছে। তাই নতুন প্রকল্পে বাঁধের উচ্চতা ১৮ফুট হচ্ছে।

আজ শুক্রবার বেলা সাড়ে ১০টায় বরিশাল থেকে ভোলা সদর উপজেলার ইলিশায় নৌ-পথে এসে পৌছেন মন্ত্রী। পরে মন্ত্রী ইলিশা এলাকার বন্যা নিয়ন্ত্রন বাঁধ ও পানি উন্নয়ন বোর্ড এর চলমান কাজ পরদির্শন করেন। কাজ পরিদর্শন শেষে উপস্থিত সাংবাদিকদের তিনি এসব কথা বলেন। মন্ত্রী আরো বলেন,চারদিকে পানি।ভোলা হচ্ছে দ্বীপের মধ্যে।এজন্য সরকার কাজ করে যাচ্ছে। আমাদের অনেক প্রকল্প আছে। ইলিশার এই পয়েন্টে খরচ হয়েছে ৩৪০কোটি টাকা। এছাড়াও শিবপুর ও ধনিয়ার জন্য ৪কিলোমিটারের প্রকল্প নিয়েছি। এটা করতে পারলে ভোলা সদরকে আমরা সুরক্ষিত করতে পারবো। পানি উন্নয়ন বোর্ড এর চলমান প্রকল্পের কজ সম্পর্কে মন্তব্য করতে গিয়ে মন্ত্রী বলেন,এখানের কাজ মান দেখেছি এবং কাজের ভুলত্রুটিগুলোর নোট নিয়েছি। এগুলোকে ঠিক করা হবে। একটি প্রকল্প তৈরি করে কাজ শুরু করতে অন্তত একবছর সময় লেগে যায়,তবে স্থানীয় এমপিদের চাপে তা ৬মাসে দ্রুত করা হয়। তাই কাজে কিছুটা ত্রুটি থাকে বলে মন্ত্রী জানালেন।

কাজের অনিয়ম সম্পর্কে সাংবাদিকদের করা প্রশ্নের উত্তরে মন্ত্রী বলেন, বাঁধ ও ব্লক নির্মানের কাজের মান ঠিক আছে কিনা তা দেখার জন্য আমাদের টাস্কফোর্স আছে তারা এসে দেখেন কাজের গুনগত মান ঠিক আছে কিনা। তার পরেও সততাটা নির্ভর করে তার নিজের উপর। আমরা কিন্তু বক্তিতার সময় বড় বড় কথা বলি,কিন্তু রাতের অন্ধকারে আমরা সৎ থাকি না। আমাদের সেই মানষিকতা নিয়ে আসতে হবে। তিনি আরো বলেন,উপকুলিয় এলাকা রক্ষায় ৩২৮০ কোটি টাকার প্রকল্প মন্ত্রনলায়ে আছে।

এসময় তার সাথে ছিলেন,সাবেক বন ও পরিবেশ উপমন্ত্রী আবদুল্লাহ আল ইসলাম জ্যাকব,নুরুন্নবী চৌধুরী শাওন ও আলী আজম মুকুল এমপি। তারা নিজ নিজ এলাকায় মন্ত্রীকে স্বাগত জানায়। এছাড়া পানি সম্পদ মন্ত্রনালয়ের অতিরিক্ত সচিব মাহামুদুল ইসলাম,ভোলার জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মাসুদ আলম ছিদ্দিক,পুলিশ সুপার সরকার মো: কায়সার,পানি উন্নয়ন বোর্ড-১এর নির্বাহী প্রোকৌশলী মো: হাসানুজ্জামান,জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ফজলুল কাদের মজনু মোল্লা, সহ-সভাপতি হামিদুল হক বাহালুল,সিনিয়র যুগ্ন-সাধারন সম্পাদক জহুরুল ইসলাম নকিব,উপজেলা আওয়ামী লীগ সাধারন সম্পাদক নজরুল ইসলাম গোলদারসহ স্থানীয় ও জেলা পর্যায়ের নেতাকর্মী ছাড়াও প্রশাসনের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। মন্ত্রী নৌ-পথে বরিশাল থেকে ভোলা আসনে। তিনি ভোলা সদর, দৌলতখান,বোরহানউদ্দিন,তজুমদ্দিন,লালমোহন ও চরফ্যাশন উপজেলার বন্যা নিয়ন্ত্রন বাঁধ ও নদী ভাঙ্গন এলাকা পরিদর্শন করেন।

LEAVE A REPLY