ভোলা-ঢাকা রুটে লঞ্চে আগের ভাড়া নেওয়া হচ্ছে

0
52

ভোলা নিউজ২৪ডটকম।। জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধির ফলে লঞ্চভাড়া বৃদ্ধি করেছে মন্ত্রণালয়।

আজ মঙ্গলবার থেকে এই বর্ধিত ভাড়া কার্যকর হয়েছে। তবে ভোলা থেকে ঢাকা রুটে লঞ্চে আগের ভাড়াই নিচ্ছেন মালিকরা। দু-একটি লঞ্চে বর্ধিত ভাড়া নেওয়া হচ্ছে। আজ মঙ্গলবার ভোলার বিভিন্ন ঘাট ঘুরে এ তথ্য পাওয়া গেছে।

তবে গত ৬ আগস্ট জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির পর ভোলা-বরিশাল রুটের ভাড়া বাড়িয়ে দেয় লঞ্চ কর্তৃপক্ষ।
ভোলার ইলিশা-ঢাকা রুটের দিবা সার্বিসের এমভি কর্ণফুলী-৩ লঞ্চের সুপারভাইজার মো. রুবেল জানান, মঙ্গলবার থেকে তাদের লঞ্চে শুধু চেয়ারের ভাড়া ১০০ টাকা ও ডাবল কেবিনের ভাড়া ২০০ টাকা বাড়ানো হয়েছে। আগে চেয়ারের ভাড়া ছিল ৫০০, এখন নেওয়া হচ্ছে ৬০০ করে। আর ডাবল কেবিনের ভাড়া ১৮০০ থেকে বাড়িয়ে ২০০০ টাকা করা হয়ছে। সিঙ্গেল কেবিন ১২০০ টাকাই আছে।

ইলিশা-ঢাকা রুটের দিবা সার্ভিস এমভি গ্রীন লাইনের ভোলা অফিসের সেলস অফিসার মো. রিয়াজ জানান, সরকার ভাড়া বৃদ্ধি করলেও তারা আগের ভাড়াই নিচ্ছেন। এমনকি তারা আগ থেকেই সরকার নির্ধারিত ভাড়ার চেয়ে কম নিচ্ছেন। সরকারি নিয়মে ইকোনমিক ক্লাসের ভাড়া ৭০০ ও বিজনেস ক্লাসের ভাড়া ১০০০ নেওয়ার কথা থাকলেও তারা ইকোনমিক ক্লাসের ভাড়া ৭০০ ও বিজনেস ক্লাসের ভাড়া ৮০০ করে নিচ্ছেন। তাদের লঞ্চটি উন্নত হওয়ায় এটা পরিচালনা ও রক্ষণাবেক্ষণ খরচ বেশি হলেও অন্য লঞ্চের সঙ্গে পাল্লা দিতে গিয়ে তাদের ভাড়া কম নিতে হচ্ছে বলে দাবি করেন তিনি। তার পরও অফিস থেকে যদি বেশি নিতে বলা হয় তাহলে ভাড়া বাড়ানো হবে।

মেসার্স ব্রাদার্স নেভিগেশনের কর্ণফুলী লঞ্চের ভোলা অফিসের ম্যানেজার মো. রুবেল জানান, তারা এখনো ভাড়া বৃদ্ধির বিষয়ে জানেন না। তাদের মালিকপক্ষও তাদেরকে ভাড়া বৃদ্ধির বিষয়ে কিছু বলেনি। তাই পূর্বের ভাড়াই তারা নিচ্ছেন।
বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআইডাব্লিউটিএ) ভোলা বন্দরের উপপরিচালক মো. শহিদুল ইসলাম জানান, মঙ্গলবার থেকে নৌপথে ৩০ শতাংশ বর্ধিত ভাড়া কার্যকর করা হয়েছে। তবে সরকারি নির্দেশনা উপেক্ষা করে কেউ বেশি ভাড়া আদায় করলে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। অনিয়ম করার সুযোগ নেই।

 

LEAVE A REPLY