গ্রীন লাইনে মুমুর্ষ রোগী যাচ্ছে ঢাকায়

0
1742

মো: আফজাল হোসেন ।। ভোলার একটি দুর্নাম হচ্ছে এখানে কেউ অসুস্থ্য হলে দ্রুত উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে ঢাকা নেয়া সম্ভব হয় না হেলিকপ্টার ছাড়া। তবে সে অসম্ভবকে সম্ভব করেছে ভোলার ইলিশা হতে ঢাকা দ্রুতগামী নৌ-যান গ্রীন লাইন সার্ভিস চালুর মাধ্যমে। যার সুবিধা পেয়েছে প্রথম দিনেই। মুমুর্ষ অবস্থায় ঢাকা নিতে পারায়।

আজ ১০ডিসেম্বর বেলা ১২টার কিছুটা পরেই ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা গ্রীন লাইন ওয়াটার বাসটি ভোলার ইলিশায় এসে পৌছায়। আগ থেকেই হাজার হাজার মানুষ এই দ্রুতগামী ওয়াটার বাসটি দেখার জন্য মেঘনা নদীর পাড়ে লাইন দিয়ে অপেক্ষা করছিলো। গ্রীন লাইন এসে ভিরানোর সাথে সাথে সকলের চোখে মুখে হাসি ফুটে উঠে কিছু না বুঝেই।

বেশ কিছুদিন ধরে এই নৌ-যানটি চালু নিয়ে নানা ধরনের গুঞ্জন ছিলো সর্বত্র। চালু হওয়া না হওয়া নিয়ে শংকা ছিলো সাধারন মানুষের মাঝে। এসব মানুষ এই নৌযানটিতে হয়তো নিয়মিত যাবেও না,তার পরেও যেন আনন্দের আর শেষ নেই। এযেন ভোলার উন্নয়নের আরেকধাপ। রাস্তার দুই পাশে পুলিশের অবস্থান। ব্যপক নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হয় ইলিশা লঞ্চঘাটে। সাধারন মানুষের মাঝে কৌতহলের যেন শেষ নেই।

ভোলার উন্নয়নের সাথে অংশিদারিত্ব হিসেবে যোগ হোল গ্রীন লাইন। তাই প্রথম দিনেই এক মুমুর্ষ মাকে নিয় ছুটে আসেন মায়ের ঐ সন্তান। দ্রুত উন্নত চিকিৎসার জন্য রাজধানী ঢাকায় নিতে হবে,ডাক্তারের এমন কথায় দেরি না করেই সোজা হাজির ইলিশা লঞ্চঘাটে। আশার বানি গ্রীন লাইন চালু হয়েছে। তাই এ্যাম্বুলেসটি এসে থামে ইলিশা লঞ্চঘাটে। দেখেই গ্রীন লাইনের কর্তপক্ষ এগিয়ে গেলেন এ্যাম্বুলেন্সের দিকে। তারা রোগীর স্ট্রেচারসহ সোজা নিয়ে আসলেন লঞ্চটিতে। অবাক দৃস্টিতে তাকিয়ে থাকা একজন পুলিশ অফিসার বলে উঠলেন এটাই কাম্য ছিলো যে উন্নত চিকিৎসার জন্য দ্রুত ঢাকা রোগী নেয়া। একে একে আসলো তিনজন রোগী।

 

LEAVE A REPLY